স্বাস্থ্য শক্ষিা অধিদপ্তর
 মহাখালী, ঢাকা-১২১২।

 

সার্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা চালু করার লক্ষ্যে উন্নত চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থা অপরিহার্য। উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। মানসম্মত মেডিকেল শিক্ষা সমুন্নত রাখা, মেডিকেল শিক্ষার আধুনিকায়ন ও যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের চিকিৎসা বিজ্ঞানে উন্নত শিক্ষা লাভের সুযোগ সম্প্রসারণের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। 

মেডিকেল কলেজ ও ডেন্টাল কলেজসমূহে স্নাতক পর্যায়ে যথাক্রমে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্স চালু রয়েছে। বিভিন্ন বিশেষায়িত চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাড়াও মেডিকেল কলেজগুলোতে স্নাতকোত্তর কোর্স চালু করা হয়েছে ও পাঠ্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ১৬/০৯/২০১৯ খ্রিঃ তারিখে অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রনালয় হতে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ০১ জন মহাপরিচালক, ০২ জন অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন, চিকিৎসা শিক্ষা), ০৮ জন পরিচালক (প্রশাসন,শৃংখলা,আর্থিক ব্যবস্থাপনা,পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা, অলটারনেটিভ মেডিসিন, ডেন্টাল শিক্ষা, গবেষনা প্রকাশনা ও কারিকুলাম উন্নয়ন), ০৭ জন উপ-পরিচালক (শৃংখলা,আর্থিক ব্যবস্থাপনা,পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, অলটারনেটিভ মেডিসিন, ডেন্টাল, গবেষনা প্রকাশনা ও কারিকুলাম উন্নয়ন), ১৩ জন সহকারী পরিচালক (প্রশাসন-৩টি,শৃংখলা, বাজেট, অডিট,পরিকল্পনা ও উন্নয়ন, সরকারি মেডিকেল কলেজ, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ, অলটারনেটিভ মেডিসিন, ডেন্টাল, গবেষনা প্রকাশনা ও কারিকুলাম উন্নয়) সহ মোট ১৪৯ টি পদ সৃজন করা হয়। এছাড়া পূর্বের চিকিৎসা শিক্ষা বিভাগের বিদ্যমান ২৯টি পদসহ মোট ১৭৮টি পদ সম্বলিত স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর গঠন করা হয়। 

 

রূপকল্প (Vision) ঃ
সার্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মান সম্মত প্রশিক্ষিত জনবল তৈরী করণ।


অভিলক্ষ্য (Mission)ঃ
চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে মান সম্মত চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থা চালু নিশ্চিত করণ।


উদ্দেশ্য সমূহ (Strategic Objectives)ঃ

কৌশলগতউদ্দেশ্যসমূহ-

চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে তদারকি কার্যক্রম জোরদার করণ।
চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মান সম্মত প্রশিক্ষিত জনবল তৈরি করণ।
চিকিৎসা শিক্ষা সম্পর্কিত আইন, বিধিমালা, নীতিমালা প্রণয়ন ও হালনাগাদ করণ।
চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নির্মাণ, ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন ও সম্প্রসারন ।
ই- লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে চিকিৎসা শিক্ষার সুযোগ বৃদ্ধিকরণ।

 

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের কার্যপরিধিঃ

  • সার্বজনীন চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতকল্পে যুগোপযোগী ও মানসম্মত দক্ষ জনবল সৃষ্টি করা। সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ, মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট ট্রেনিং স্কুল ও ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি সমূহে ধারাবাহিক ভাবে চিকিৎসা শিক্ষার মান উন্নয়ন অব্যাহত রাখা।
  • স্নাতকোত্তর চিকিৎসা শিক্ষার উন্নয়নে পোস্ট গ্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট সমূহে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা।
  • সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেলকলেজ ও ডেন্টালকলেজ সমূহের নীতিমালা অনুযায়ী পরিচালনা নিশ্চিত করা।
  • প্যারা মেডিকেল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মেডিকেল সহকারী প্রশিক্ষণ স্কুল সমূহের শিক্ষা ব্যবস্থার মানউন্নয়ন, বাস্তবায়ন ও সুষ্টভাবে পরিচালনার জন্য পদক্ষেপ গ্রহণএবংনীতিমালা অনুযায়ী পরিচালনা নিশ্চিত করা।
  • সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেল কলেজ, ডেন্টাল কলেজ, মেডিকেল এ্যাসিসটেন্ট ট্রেনিং স্কুল ও ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজী সমূহে সমন্বিত ভাবে ভর্তি পরীক্ষা পরিচালনা।
  • হোমিও প্যাথিক ও দেশজ চিকিৎসা শিক্ষা বিস্তার ও মানউন্নয়নে কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা। হোমিওপ্যাথ, আয়ুবের্দী ও ইউনানী কোর্সে ভর্তি পরীক্ষা ও মানসম্মত কোর্স পরিচালনা।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষা সংক্রান্ত নীতিমালা, কৌশল, নিয়োগ বিধিমালা সহ অন্যান্য বিধি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সহায়তা প্রদান
  • মেডিকেল, ডেন্টাল, মেডিকেলএ্যাসিসটেন্ট ট্রেনিং স্কুল ও ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি সহ অন্যান্য কারিকুলাম প্রণয়ন ও হালনাগাদ করণ।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের তথ্য ব্যবস্থাপনা সহ পরিকল্পনা প্রণয়ন বাস্তবায়ন কৌশল নির্ধারণ।চিকিৎসা শিক্ষায় নিয়োজিত জনবলের তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ নিশ্চিতকরা।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর এবং এর নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন œপ্রতিষ্ঠানের মানব সম্পদ উন্নয়ন ব্যবস্থাপনার পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নে সহায়তা প্রদান।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষায় কর্মরত জনবলের ক্যারিয়ার প্লানিং এ মন্ত্রণালয়কে সহায়তা প্রদান।
  • চিকিৎসা শিক্ষার সঠিক উন্নয়নের লক্ষ্যে পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন নিশ্চিতকরণ গবেষণা কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন।
  • অধিদপ্তর ও অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণাধীন বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের দেশে ও বিদেশে উন্নতর প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষতাবৃদ্ধি করা ।
  • মন্ত্রণালয়, মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় সমূহ, বিএমডিসি, স্টেট মেডিকেল ফ্যাকাল্টি এবং বিএমএ সহ অন্যান্য স্টেক হোল্ডারদের সাথে সমন্বয় সাধন।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর ও নিয়ন্তণাধীন প্রতিষ্ঠান সমূহে বাজেট প্রণয়ন অর্থ বরাদ্দ ছাড় করণ, অডিট সম্পাদন, অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি সহ উন্নতর আর্থিক ব্যবস্থাপনা কর্মসূচী প্রণয়ন ও ব্যবস্থা গ্রহণ।
  • স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর ও নিয়ন্ত্রণাধীন প্রতিষ্ঠান সমূহের চিকিৎসা শিক্ষা সংক্রান্ত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ, মামলা নিষ্পত্তি, এটর্নী জেনারেলেরঅফিস ও আদালতের সাথে সংযোগ রক্ষা এবং প্রচলিত বিধি বিধান প্রয়োগে আইনগত মতামত প্রদান।
  • প্রযোজ্য ক্ষেত্রে বিভিন্ন শ্রেণীর কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পদোন্নতি, নিয়োগ, পদায়ন ও বদলী ও পেনশন সংক্রান্ত কার্যাদি পরিচালনা।
  • উন্নয়ন ও অগ্রগতি নিশ্চিতকল্পে অপারেশন প্লানের অন্তর্ভূক্ত বিভিন œকর্মকান্ড বাস্তবায়ন।

বর্তমানে সরকারি পর্যায়ে ”চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানঃ

  • ৩৭ টি সরকারি মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস কোর্সে আসন সংখ্যা ৪৩৫০টি।
  • ১ টি সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও ৮ টি ডেন্টাল ইউনিট এ আসন সংখ্যা ৫৯৫ টি।
  • ২৮ টি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট প্রতিষ্ঠান এ আসন সংখ্যা ১৫১৮ টি।
  • ৯ টি মেডিকেল এ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল এ আসন সংখ্যা ৮১৮ টি।
  • ১১ টি ইনস্টিটিউট অফ হেলথ টেকনোলজিতে আসন সংখ্যা ২৫৮৫ টি।

বর্তমানে বেসরকারি পর্যায়ে ”চিকিৎসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানঃ

  • ৭১ টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে আসন সংখ্যা ৬৩৪৭ টি।
  • ০৬ টি আর্মড ফোর্সেস ও আর্মি মেডিকেল কলেজে আসন সংখ্যা ৩৭৫ টি।
  • ১২ টি বেসরকারি ডেন্টাল কলেজে আসন সংখ্যা ৯৪০ টি
  • ১৪ টি বেসরকারি ডেন্টাল ইউনিট এ আসন সংখ্যা ১৪০৫ টি।
  • ১৩ টি স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট প্রতিষ্ঠানে আসন সংখ্যা ২২০টি।
  • ২০০ টি বেসরকারি মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট প্রশিক্ষণ স্কুলের মধ্যে ১৮৪ টি প্রতিষ্ঠান চলমান, আসন সংখ্যা ১৩,৫৪০ টি।
  • ৯৭ টি বেসরকারি ইনস্টিটিউশন অফ হেলথ টেকনোলজী এর মধ্যে ৬৪ প্রতিষ্ঠান চলমান, আসন সংখ্যা ৮,৯৪০ টি।

উন্নত চিকিৎসা সেবা বিকেন্দ্রীকরণ, চিকিৎসা শিক্ষায় দক্ষ জনবল সৃষ্টি এবং গবেষণা কার্যক্রম উত্তোরত্তর বৃদ্ধির লক্ষ্যে বর্তমান সরকার বিএসএমএমইউ সহ রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও সিলেট মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চালু করেছে।

বিকল্প ধারার চিকিৎসা ব্যবস্থা উৎসাহিত করতে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে অল্টারনেটিভ মেডিকেল কেয়ার কলেজ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বেসরকারি মেডিকেল কলেজে মেধাবী ছাত্র ছাত্রী ভর্তি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অভিন্ন প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করে মেধাতালিকা অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম চালু রয়েছে।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

  • স্বতন্ত্র এ্যাক্রিডিটেশন কাউন্সিল গঠন করা।
  • নতুন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের জন্য এমআইএস/এইচআরআইএস তৈরী করা।
  • সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেল কলেজ সমূহে গ্রেডিং সিস্টেম বাস্তবায়ন করা।
  • এমবিবিএস, বিডিএস, হোমিও প্যাথিক,দেশজ চিকিৎসা, আইএইচটি ও ম্যাটস এর কারিকুলাম সময়ের সাথে যুগোপযোগী করা।
  • এ্যালাইড হেলথ প্রোফেশনাল এডুকেশনাল বোর্ড স্থাপন করা।