সচিব এর জীবন বৃত্তান্ত

 

 

মোঃ সাইফুল হাসান বাদল

সচিব

স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়

 

জনাব মোঃ সাইফুল হাসান বাদল গত ০৪ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব হিসেবে কর্মকাল শুরু করেন। এ বিভাগে যোগদানের পূর্বে তিনি বিভাগীয় কমিশনার, বরিশাল বিভাগ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

 

জনাব মোঃ সাইফুল হাসান বাদল বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন) ক্যাডার-এর ১৯৯৩ (একাদশ) ব্যাচের একজন সদস্য। তিনি ১৯৯৩ সালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, ঢাকা-তে সহকারী কমিশনার হিসেবে যোগদানের মাধ্যমে প্রশাসন সার্ভিসে যাত্রা শুরু করেন। পরবর্তীতে তিনি সহকারী কমিশনার (ভূমি), উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসক এবং বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ এবং যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ে সিনিয়র সহকারী সচিব, বাংলাদেশ সংসদ সচিবালয়ের সচিবের একান্ত সচিব, বিজ্ঞান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিবের একান্ত সচিব, ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিবের একান্ত সচিব, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে যুগ্মসচিব, নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ে প্রকল্প পরিচালক, বাংলাদেশ টেলিভিশনের উপ-মহাপরিচালক, বাংলাদেশ ওভারসিজ এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড সার্ভিসেস লিঃ (বোয়েসেল) এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

 

তিনি মাদারীপুরের সদর উপজেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে তিনি অত্যন্ত সফলতার সাথে মাধ্যমিক ও কালকিনি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকপ্রশাসনে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। এছাড়াও তিনি এমবিএ এবং পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপ্লোমা-ইন-কম্পিউটার সায়েন্স কৃতিত্বের সাথে সম্পন্ন করেন। দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি সততা, নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে সরকারি দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা পদক, ২০১৩; জাতীয় আইসিটি পদক, ২০১৪; পরিবেশ পদক, ২০১৫; অতীশ দীপঙ্কর আন্তর্জাতিক স্বর্ণ পদক, ২০১৬ এবং শ্রেষ্ঠ বিভাগীয় কমিশনার পুরষ্কার, ২০২১ অর্জন করেন।

 

প্রশিক্ষণসহ পেশাগত বিভিন্ন কাজে তিনি ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও থাইল্যান্ড ভ্রমণ করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত এবং ০২ (দুই) কন্যা সন্তানের জনক।